199000

কাদিয়ানী তৎপরতা রোধে মুফতি হাফিজুদ্দিনের কিছু প্রস্তাবনা

আওয়ার ইসলাম: রাজধানীর রামপুরায় বায়তুল হুদা জামে মসজিদ, ওয়াপদা রোডে ‘কাদিয়ানী অপতৎপরতা ও ওলামায়ে কেরামের জিম্মাদারী শীর্ষক’ এক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ (০১ অক্টোবর) বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টায় ‘রামপুরা ও হাতিরঝিল থানা ইমাম-খতিব পরিষদ’ এর উদ্যোগে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে রামপুরা ও হাতিরঝিল থানা ইমাম ও উলামা পরিষদ সভাপতি ও জামিয়া শারইয়্যাহ মালিবাগের সিনিয়র মুহাদ্দিস মুফতি হাফিজুদ্দীন সভাপতিত্ব করেন।

কাদিয়ানী অপতৎপরতা ও ওলামায়ে কেরামের জিম্মাদারী শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রশিক্ষণ দিয়েছেন, মিফতাহুল উলুম বাড্ডা মাদরাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস মাওলানা আব্দুল মজিদ, মারকাযুদ্দাওয়া আল ইসলামিয়ার দাওয়া বিভাগের মুশরিফ মাওলানা হুসাইন আহমদ।

এতে উপস্থিত ছিলেন, জামিয়া ইসলামিয়া কাসিমুল উলুম ঢাকা মহানগর মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা মাহফুজুর রহমান, দারুল উলুম বনশ্রী মাদরাসার মাওলানা মাহফুজুর রহমান, দারুল উলুম বনশ্রী মাদরাসার নাজিমে তালীমাত মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মামুন, দারুল উলুম রামপুরা বনশ্রী মাদরাসার সহকারী নাজিমে তালীমাত মাওলানা জামিল আহমদ, জাতীয় মহিলা মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা হুসাইন আহমদ।

সভাপতির বক্তব্যে মুফতি হাফিজুদ্দীন বলেন, বাংলাদেশে কাদিয়ানীদের কাফের ঘোষণা না হওয়া অবদি সারাদেশে তাদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলবে। এ সময় তিনি প্রশিক্ষণের জন্য বিভিন্ন প্রস্তাবনা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘আইয়াম্মায়ে মাসাজিদ ও খতিবদের কাছে আবেদন থাকবে, আপনাদের আমি দায়িত্ব দিবো, আপনারা এই শপথ নেন যে, আমি প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে পাঁচজন মানুষকে খতমে নবুওয়াত সম্পর্কে বুঝাবো। বছরে কমপক্ষে একবার কাদিয়ানীদের দ্বারা আক্রান্ত এলাকায় সফর করবো। আর মাসে কমপক্ষে একবার জুমার মসজিদে কাদিয়ানীদের সম্পর্কে বয়ান করবো।’

মাদরাসার আসাতিযায়ে কেরামের প্রতি অনুরোধ থাকবে, ‘কমপক্ষে সপ্তাহে একদিন পরস্পর বসে খতমে নবুওয়াতের উপর মুজাকারা করা। কাদিয়ানীদের অপতৎপরতা রোধে ইখলাস ও লিল্লাহিয়াতের সাথে গঠনমূলক সব কাজ করার চেষ্টা করা।’

বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ এর মহাপরিচালক অধ্যক্ষ জুবায়ের আহমদ চৌধূরী উপস্থিত থাকতে না পারলেও ভিডিও বার্তায় তিনি বক্তব্য দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

এমডব্লিউ/

ads